সাফ ওমেন চ্যাম্পিয়নশিপ: ভুটানকে গোলবন্যায় ভাসিয়ে ফাইনালে বাঘিনীরা

digitalsomoy

অধিনায়ক সাবিনা খাতুনের হ্যাটট্রিকে ভুটানকে ৮-০ গোলে উড়িয়ে দিয়েছে বাংলাদেশ। এই জয়ের ফলে সাফ নারী চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে উঠে গেছে লাল সবুজের প্রতিনিধিরা।

নেপালের কাঠমান্ডুতে দশরথ স্টেডিয়ামে সাফ নারী চ্যাম্পিয়নশিপের প্রথম সেমিফাইনালে জায়গা করে নিলো বাঘিনীরা। নেপালে এদিন সাফ চ্যাম্পিয়নশিপের সেমিফাইনালে একচেটিয়া খেলেছে বাংলাদেশ।

দুই অর্ধে চারটি করে মোট আট গোল পূর্ণ করেছে বাঘিনীরা। টুর্নামেন্টে দ্বিতীয়বারের মতো হ্যাটট্রিকের দেখা পেয়েছেন বাংলাদেশের অধিনায়ক সাবিনা খাতুন। এর আগে পাকিস্তানের বিপক্ষে হ্যাটট্রিক করেন এই ফুটবলার।

সোয়া ১টার কাঠমান্ডুর দশরথ স্টেডিয়ামে ম্যাচের শুরুতেই লিড নেয় গোলাম রাব্বানী ছোটনের দল। ম্যাচের ১ মিনিট ৩৪ সেকেন্ডেই গোল পেয়ে যায় বাংলাদেশ। মনিকা চাকমার থ্রু পাস নিয়ন্ত্রণে নিয়ে গোলরক্ষককে কাটিয়ে নিখুঁত কোনাকুনি শটে লক্ষ্যভেদ করেন সিরাজ জাহান স্বপ্না। ১৭ মিনিটে গোলরক্ষককে কাটিয়ে দূরূহ কোণ থেকে দারুণ গোলে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন সাবিনা।

২৪তম মিনিটে মনিকার ক্রসে কৃষ্ণা রানী সরকার পা ছুঁইয়েছিলেন, কিন্তু বল যায় পোস্টের বাইরে। ৩০তম মিনিটে মনিকার আড়াআড়ি ক্রসে কৃষ্ণার হেড এক ড্রপ খেয়ে জালে জড়ায়।

পাঁচ মিনিট পর মনিকার থ্রু পাস পোস্ট ছেড়ে বেরিয়ে এসে স্লাইড করলেও পুরোপুরি বিপদমুক্ত করতে পারেননি গোলরক্ষক। তিনি স্লাইড করার পর ঋতুপর্ণার পায়ে লেগে বল তার সামনেই পড়ে। বাঁ পায়ের নিচু শটে ফাঁকা পোস্টে বল জালে জাড়ান এই ফরোয়ার্ড।

বিরতির ৯ মিনিট পর অধিনায়ক সাবিনা খাতুন নিজের দ্বিতীয় গোল করেন। সংঘবদ্ধ আক্রমণে বক্সের মধ্যে ফাঁকা জায়গায় বল নিয়ে ঠাণ্ডা মাথায় প্লেসিং করেন এই ফরোয়ার্ড। তিন মিনিট পর বক্সের বাইরে থেকে নেওয়া সাবিনার ফ্রি কিক গোলরক্ষকের হাত থেকে ফস্কে গেলে সামনে দাঁড়িয়ে থাকা মাসুরা পারভীন টোকা দিয়ে বল জালে পাঠান।

শেষ সময়ে তহুরা খাতুন ব্যবধানটা ৭-০ করেন। এরপর একেবারে শেষ মুহূর্তে গোল করে নিজের হ্যাটট্রিক পূর্ণ করেন সাবিনা। তাতে বাংলাদেশ ৮-০ গোলের বিশাল জয় নিয়েই ফাইনাল নিশ্চিত করে ফেলে।

শিরোপা যুদ্ধে টিকে থাকতে সন্ধ্যা ৫টা ৪৫ মিনিটে দ্বিতীয় সেমিফাইনালে স্বাগতিক নেপালের বিপক্ষে মাঠে নামবে ভারত।