পুরাতন ঘর ভাঙতে গিয়ে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে নিহত ৩

digitalsomoy

বরগুনায় পুরাতন ঘর ভাঙার সময় বিদ্যুৎপৃষ্ট হয়ে একই এলাকার তিনজনের মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় একজনকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

শনিবার (১৭ সেপ্টেম্বর) দুপুর ২টার দিকে বরগুনা সদর উপজেলার ঢলুয়া ইউনিয়নের কদমতলা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।


মৃতরা হলেন- কদমতলা গ্রামের হারুন হাজীর ছেলে বিদেশ ফেরত মো. হেলাল (৩৫), শাহজাহানের ছেলে মো. বেলায়েত (২৫) ও জলিল মিয়ার ছেলে মো. রবিউল ( ১৪)। গুরুতর আহত অপর একজন হলেন একই এলাকার নিজাম খানের ছেলে আরিফ (২০)।

এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন সদর থানার অফিসার্স ইনচার্জ (ওসি) আলী আহম্মেদ।

পরিবার সূত্রে জানা গেছে, বিদেশ ফেরত হেলাল হোসেনের পুরাতন টিনের ঘর ভাঙার কাজ করছিল বেশ কিছু শ্রমিক। দুপুরের দিকে পুরাতন ঘরে থাকা মিটারের সংযোগের তার খুলে ঘরের টিনে লাগে। এ সময় চারজন বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হন।

স্থানীয়রা আহত অবস্থ সবাইকে বরগুনা সদর হাসপাতালে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তিনজনকে মৃত ঘোষণা করেন। একজনের শারীরিক অবস্থা আশঙ্কাজনক, তাকে বরিশাশের শেরেবাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে রেফার করা হয়। যাদের মৃত্যু হয়েছে তারা প্রত্যেকে পরিবারের একমাত্র ছেলে। ঘটনাস্থলে পুলিশ এসে মরদেহের সুরতহাল করেছে।  

পল্লীবিদ্যুৎ বরগুনা জোনাল অফিসের ডিজিএম আরব আলী জানান, পটুয়াখালী পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির অন্তর্গত, বরগুনা জোনাল অফিসের আওতায় রায়ভোগ অভিযোগ কেন্দ্রের অধীনে কদমতলী গ্রামে বিলাত হোসেন নামে এক গ্রাহক অফিসের অগোচরে সংযোগ বিচ্ছিন্ন না করে নিজেরা নিজেরা ঘর মেরামত করছিলেন। মেরামত কাজে নিয়োজিত চার মিস্ত্রির মধ্যে একজনের হাত থেকে টিন নিচে পড়ে গেলে মিটারটি ভেঙে যায়। ফলে টিন বিদ্যুতায়ীত হয়ে যায়। সঙ্গে সঙ্গে চার জনের মধ্যে তিন জনের ঘটনাস্থলে মৃত্যু হয়।