সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ: দীর্ঘদিন পর স্বপ্ন পূরণ হলো বাংলাদেশের

digitalsomoy

নারী সাফ চ্যাম্পিয়নশিপে ইতিহাস গড়েছে বাংলাদেশের মেয়েরা। দীর্ঘ অপেক্ষার অবসান হলো, স্বপ্ন পূরণ হলো। 

সোমবার (১৯ সেপ্টেম্বর) নেপালের কাঠমান্ডুর দশরথ রঙ্গশালা স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত ফাইনালে চারবারের ফাইনালিস্ট নেপালকে উড়িয়ে ৩-১ গোলে দিয়ে প্রথমবার সাফের শিরোপা জিতেছে বাংলাদেশ জাতীয় নারী ফুটবল দল।

পুরুষ ও নারীদের সাফের ইতিহাসে এটা বাংলাদেশের দ্বিতীয় শিরোপা। এর আগে ১৯ বছর আগে ২০০৩ সালে ঘরের মাঠে জাতীয় পুরুষ ফুটবল দল মালদ্বীপকে টাইব্রেকারে হারিয়ে শিরোপা জিতেছিল। তারও আগে ১৯৯৯ সালে দক্ষিণ এশিয়ান গেমসে (এসএ গেমস) ফুটবল ইভেন্টে এই রঙ্গশালা স্টেডিয়ামেই নেপাল জাতীয় পুরুষ দলকে হারিয়ে স্বর্ণ জিতেছিল বাংলাদেশ। আজ সেই রঙ্গশালা স্টেডিয়ামের হাজার বিশেক দর্শককে নিস্তব্ধ, নিঃসাড় করে দিয়ে লাল-সবুজের কেতন উড়িয়েছে সাবিনা-কৃষ্ণারা। হয়েছে নারী সাফের নতুন রানী।

এমন জয়ে বাংলাদেশের হয়ে জোড়া গোল করেছেন শ্রীমতি কৃষ্ণা রানী সরকার। অপর গোলটি করেছেন সুপার সাব শামসুন্নাহার জুনিয়র। অবশ্য দেশের ক্রিকেট ও ফুটবলের খারাপ সময়ে তাদের এই শিরোপা বাংলাদেশের ক্রীড়াঙ্গন ও ক্রীড়ামোদি মানুষের জন্য দারুণ কিছু। এ অর্জন নিঃসন্দেহে অসামান্য।

ম্যাচের আগে কাঠামান্ডুতে ভারি বৃষ্টি হয়। তাই মাঠ হয়ে যায় কর্দমাক্ত। বল নিয়ন্ত্রণে কিছুটা সমস্যা হলেও আক্রমণাত্মক ফুটবল খেলে দুই দল। সাফল্য বাংলাদেশ পায় শুরুতেই।

প্রথম মিনিটে মারিয়া মান্ডার বক্সের বাইরে দারুণ শট নেপালের গোলরক্ষক রুখে না দিলে বিপদ হতে পারত। পরে স্বপ্নার শট কর্নারের বিনিময়ে আঞ্জিলা থুম্বাপো সুব্বো।

ম্যাচের ১৩ মিনিটে দারুণ গোলে এগিয়ে যায় বাংলাদেশ।  সানজিদা খাতুন ও মনিকার পা ঘুরে বল পেয়ে শামসুন্নাহারের আলতো শটে জালে জড়ান বল।

এক গোল খেয়ে ম্যাচে ফেরার জন্য মরিয়া হয়ে ওঠে নেপাল। বেশ কয়েকটি সুযোগও পায় তারা। কিন্তু কাজে লাগাতে পারছিল না স্বাগিতক দলটি।   

অথচ খেলার ধারার বিপরীতে ৪২ মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুণ করে ফেলে বাংলাদেশ।  নেপালের এক খেলোয়াড়ের ভুলে বল পেয়ে অধিনায়ক সাবিনার পাস থেকে কৃষ্ণা বল জালে পাঠাতে ভুল করেননি।

অবশ্য দুই দলই এর আগে সাফে শিরোপার স্বাদ পায়নি। এবার সেমিফাইনালে ৮-০ গোলে ভুটানকে বিধ্বস্ত করে বাংলাদেশ।

সাফে এর আগে তিনবার মুখোমুখি হয় বাংলাদেশ ও নেপাল। দুইবার সেমিফাইনালে এবং একবার গ্রুপ পর্বে। তিনবারই হারেছিল বাংলাদেশ। এবার আর পারেনি নেপাল। নিজেদের মাঠেই সাবিনাদের কাছে হারে